ন্যানো ক্রেডিট

যে সমস্ত মানুষের সত্যিকার সহায়তা প্রয়োজন তাদের জন্য সার্ভিস চার্জের নামে বাড়তি টাকা দেয়াটা কঠিন হয়ে পড়ে। এদেরকে যে-কোনও প্রকারের ‘সার্ভিস চার্জ’-এর আওতার বাইরে রাখাটাই সমীচীন। মোদ্দা কথা, যে টাকাটা দেওয়া হবে ভাগ করে-করে এই টাকাটাই এরা ফেরত দেবে। এমনিতে খুব বড় অংকের টাকার তো এদের প্রয়োজন নেই। যেমন ধরা যাক, হৃদয়ের কথা।

একটা সময় ছিল যখন সে স্কুলে পড়ত। ঠিক মত দাঁড়াতেই পারত না, হাঁটাচলায় খুব কষ্ট। প্রবাসে থাকেন এমন একজন সহৃদয় মানুষ তার জন্য হুইল-চেয়ারের ব্যবস্থা করে দিয়েছিলেন [১]

এখন সেই হৃদয় রাস্তার পাশে হাস-মুরগি বিক্রি করে দিনযাপন করে। এখন এই সংস্থার পক্ষ থেকে যে টাকাটা তাকে ঋণ দেয়া হচ্ছে এর হিসেব খুব সোজা। হৃদয় তার সুবিধামত টাকাটা ভাগ করে-করে ফেরত দেবে। যেদিন মূল টাকাটা ফেরত দেবে সেই দিন তার সঙ্গে হিসেব শেষ। আর টাকা পরিশোধের একেবারে শেষ সময়ে মূল টাকার ১০ ভাগ তাকে পুঁজি হিসাবেও দেওয়া হবে।

১. হৃদয়:

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *