ইশকুল

নিডো পূর্বেও বয়স্কদের জন্য স্কুল পরিচালনা করেছে। এই কার্যক্রমটা আবারও শুরু করা হয়েছে। এক মাস ছাড়িয়ে গেল।

এদের শিক্ষক সুবর্ণা আজিজ বিচিত্র এক সমস্যা সামনে নিয়ে এলেন। স্কুলে মার সঙ্গে ‘কাচ্চাবাচ্চাও’ চলে আসে।

আহা, মা কোথায় রেখে আসবেন বাচ্চাদের! থাকুক না এরাও- এই ফাঁকতালে দু-চার বর্ণ বাচ্চারাও শিখলে সমস্যা তো নেই কোনও। বরং এক ঢিলে দুই পাখি…!

আমরা মাসের শুরুতেই বলে দিয়েছিলাম, স্কুলে সবচেয়ে বেশি যার হাজিরা থাকবে তাঁকে স্কুলের পক্ষ থেকে পুরস্কারের নামে সম্মানিত করা হবে।

স্কুলে ফাতেমা বেগম নামে একজনের উপস্থিতি সবার চেয়ে বেশি। লেমনেটিং করা মিনি পোস্টার টাইপের একটা গ্রুপ ছবি ছাপানো হয়েছে। যেখানে লেখা একজন শিক্ষিত মা, ফাতেমা বেগম। স্কুলে সবার সামনে শিক্ষক এটা তুলে দেবেন ফাতেমা বেগমের হাতে…

* ফটো ক্রেডিট: ইকবাল হোসেন, ম্যানেজার, নিডো।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *